ক্লাইন্ট এবং সারভারঃ নেটওয়ার্কিং পর্ব-৩

নেটওয়ার্ক ইকুইপমেন্টগুলোকে আলাদাভাবে একটু পরিচয় করিয়ে দিতে হবে। যদিও আপনি এদের সবগুলোকেই হয়তো চিনেন।

হোস্ট ও ক্লাইন্টঃ

আমার নিজের যে কম্পিউটার, ল্যাপটপ বা মোবাইলটা কোন নেটওয়ার্কে আছে সেটি ক্লাইন্ট। আমি নেটওয়ার্কে যুক্ত কেন? নিশ্চই কোন সুবিধা নেওয়ার জন্য। এই কম্পিইউটারকে নেটওয়ার্কের ভাষায় হোস্ট বলি। যদিও সব কম্পিউটারই হোস্ট। ধরুন আমি নেটওয়ার্কে আছি ইন্টারনেট সুবিধা পাওয়ার জন্য। অফিসের একটা সফটওয়্যার আছে সেটা ব্যবহার করার জন্য। সফটওয়্যারটা আরেকটা কম্পিউটারে আছে। সেটি আমার কম্পিউটারে এনে কাজ করবো। তাহলে সফটওয়্যারটি যে কম্পি্টারে আছে সেটি সারভার।

আমরা একটু আগের দিকে যাই।

প্রথমদিকে যখন কম্পিউটার ব্যবহার শুরু হয়। তখন মূলতঃ মেইন ফ্রেম কম্পউটার ব্যবহুত হতো। মেইন ফ্রেমে অনেক ব্যবহারকারী আলাদা ইন্টার ফেসে একই কম্পিউটারে বসে কাজ করতো। তার মানে একই কম্পিউটারে অনেকগুলো ইনপুট এবং আউটপুট ডিভাইস লাগানো থাকতো। পরবর্তিতে পারসোনাল কম্পিউটার উদ্ভাবনের পর একই কম্পিউটার সবার কাজ করার জন্য ক্লাইন্ট-সারভার টেকনলোজীর প্রয়োজন হয়।

সারভারঃ

তার মানে যে কম্পিউটার বা সফটওয়্যারকে  অন্য কম্পিউটার বা হোস্ট রিমোটলি ব্যবহার করে তাকে সারভার বলা হয়। সার্ভিস প্রদানকারী কম্পিউটারটি সারভার পিসিও বলা হয়।

এখনকার যুগে বিভিন্ন সার্ভিসের জন্যই সারভার রাখার প্রচলন শুরু হয়ে গেছে। আপনি একটি ওয়েবসাইট ব্রাউজ করতে গিয়ে

আপাততঃ কয়েকটি সার্ভারের কাজ উল্লেখ করলে সারভার কনসেপ্টটা বেশ সহজ হবে।

Application Server: এপ্লিকেশন সার্ভার কোন সফটওয়্যার সার্ভিস ক্লইন্টের মেশিনে চলার ব্যবস্থা করে। এটি মূলতঃ সার্ভার কম্পিউটারে রান হবে এবং ক্লাইন্টে রেপ্লিকা দেখাবে।

Database Server: একই ডাটাবেজে অনেককে কাজ করতে হয়। এমনকি বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও। সেক্ষেত্রে ডাটাবেজ সারভার গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে।

Web Server: আমরা যত ওয়েবসাইটই ব্রাউজ করছি সবই ওয়েব সারভারে জমা।আমরা ওয়েব ব্রাউজ ছাড়াও ওয়েব সারভার ব্যবহার করি। সেই আলোচনা পরে।

DNS Server ও DHCP Server: ডিএনএস সারভার নামের পরিবর্তে আইপি এড্রেস জানায়। এ বেপারে আমার একটি ভিডিও আছে। লিংকে ক্লিক করে দেখে নিতে পারেন।

DHCP Server DHCP সারভার মূলতঃ নেটওয়ার্কে আইপি ঠিক করে দেয়। সাধারনতঃ গেটওয়ের রাউটার DHCP সার্ভিস প্রদান করে থাকে।

আপনার কম্পিউটারও একটি সারভার হতে পারে।আবার কোন সারভার নিজে অন্য সারভার থেকে তথ্য নিয়ে কাজ করতে পারে। এ ক্ষেত্রে সেই সারভারে নিজেও একটি ক্লাইন্ট।

 

আরো পড়ুনঃ

মাহবুব টিউটো

তিনি টিউটোরিয়ালবিডিসহ বেশ কিছু সফল অনলাইন প্রোজেক্টের উদ্যোক্তা ও পরিচালক। তিনি বর্তমানে একটি গ্রুপ প্রতিষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তিতে কর্মরত আছেন। তার জন্ম, পড়ালেখা এবং আবাস্থল ঢাকায়। ফেসবুকে আর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তার ইউটিউব চ্যানেলে ঘুরে আসতে পারেন।

 


820 Views

Comment with Facebook Comment Box

মন্তব্য করুন