ওয়েব হোস্টিং কি?

আপনি যখন কোন ওয়েবসাইট বানাবেন সেটি সবাই যাতে দেখতে এবং আপনার ওয়েবসাইটের সুবিধা পেতে পারে তার জন্য কোন একটা সারভারে রাখতে হবে। সেই সারভারটি তাহলে কেমন হতে হবে?

হোস্টিং বেসিক
১. ওয়েব হোস্টিং কি?
২. শেয়ার হোস্টিং
৩. ভিপিএস হোস্টিং
৪. ডেডিকেটেড সারভার
৫. রিসেলার হোস্টিং
৬. ম্যানেজড ও আনম্যানেজড
৭. উইনডোজ এবং লিনাক্স হোস্টিং
৮.কো-লোকেশন কি?
৯. স্পেশাল হোস্টিং
ওয়েব হোস্টিং ব্যবসা
১. ওয়েব হোস্টিং ব্যবসা কি?
২. কিভাবে ওয়েব হোস্টিং ব্যবসা করা যায়?
৩. কিভাবে রিসেলার হোস্টিং দিয়ে ব্যবসা শুরু করবেন?
৪. WHMCS কি?
৫. হোস্টিং ব্যবসা সাপোর্ট সম্পর্কিত কিছু কথা
৬. টেকনিক্যাল সমস্যায় করনীয়

নিশ্চই সেটি-

  • সবসময় চলবে-দিন রাত চব্বিশ ঘন্টা ৩৬৫ দিন
  • ইন্টারনেটে যুক্ত থাকবে (কারন ইন্টারনেটের মাধ্যমেই তথ্য আদান প্রদান হবে।)
  • ওয়েবসাইটটি যে সব নেটওয়ার্ক সার্ভিস দরকার সারভারে তা থাকতে হবে।-HTTP, FTP ইত্যাদি।
  • সারভারটি যেহেতু দুনিয়ার সবাই ব্যবহার করবে তাই নিশ্চই যে কেউ হ্যাক করার চেষ্টা করতে পারে। তাই নিরাপত্তাও যথেষ্ট থাকতে হবে।

এই সুবিধার সার্ভিসকেই ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস বলে থাকি। সাইট কে সারভারের এই সুবিধাগুলো সহ রাখাকে ওয়েব হোস্টং বলি।

আপনি চাইলে নিজের বাসায়ও ওয়েব সারভার বসিয়ে নিজের ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারেন। কিন্তু সেটা তো লাভজনক হয় না। কারন-বিদ্যুৎ আর উচ্চগতির ইন্টারনেটের খরচে আপনার পোষাবে না।

তাই স্বাধারনত আমরা ভাল হোস্টিং প্রভাইডারের কাছে আমাদের ওয়েবসাইট হোস্ট করি।

মাহবুব টিউটো

তিনি টিউটোরিয়ালবিডিসহ বেশ কিছু সফল অনলাইন প্রোজেক্টের উদ্যোক্তা ও পরিচালক। তিনি বর্তমানে একটি গ্রুপ প্রতিষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তিতে কর্মরত আছেন। তার জন্ম, পড়ালেখা এবং আবাস্থল ঢাকায়। ফেসবুকে আর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তার ইউটিউব চ্যানেলে ঘুরে আসতে পারেন। 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য লিখুন

Leave a Reply