নিউ ইয়র্ক টাইমসের ৭ মিলিয়ন পুরানো ছবি তে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স

কয়েকশত বছরের ছবির আর্কাইভ রয়েছে নিউইয়র্ক টাইমসের। নিউইয়র্ক টাইমস তাদের ছবিগুলোর হার্ডকপি সংরক্ষণের জন্য কেবিনেট ব্যবহার করতো এবং ছবিগুলোর প্রেক্ষাপটের ক্যাপশনও আছে সেখানে।

এই ছবিগুলো স্ক্যান করে ভাগ করার দায়িত্ব পেয়েছে গুগল। আর আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্সের ব্যবহারের মাধ্যমে আর্কাইভের কাজটি সহজে করা হবে।

কাজটি শেষ হলে উনবিংশ শতাব্দির সারা বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের ছবি ও খবরের মাধ্যমে অনেক রোমাঞ্চকর ঘটনাই ডিজিটাল হবে তবে তা সবার জন্য উম্মুক্ত হবে কিনা তা জানা যায় নি।

কেন গুগলকে ডাকতে হলো?

ছবিগুলো স্ক্যান করা এবং ক্যাপশন বসানোর মতো কাজে গুগলকে কেন ডাকতে হলো-এ প্রশ্ন করতে পারেন। কিন্তু গুগল আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে সহজ উপায় বের করবে যাতে করে দ্রুত ছবিগুলো একসেস করা যাবে। বা ছবিগুলোকে বিভাগ অনুসারে সাজানোও সহজ হবে।

আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ছবির উপর কিভাবে কাজ করে তা জানা গেলে হয়তো আরো নতুন আইডিয়ার জন্ম হবে।

আরো পড়ুনঃ

এই লেখাটি সবার জন্য উম্মুক্ত নয়। আপনি শুধু মাত্র লগইন অবস্থায় এই পোস্টের সম্পুর্ণ অংশ পড়তে পারবেন। দয়া করে লগইন করুন। নতুন সদস্য হলে রেজিস্ট্রেশন করুন।

Existing Users Log In

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.


   
New User Registration
*Required field