বাবুরাম সাপুড়ে!!!!

বাবুরাম সাপুড়ে, কোথা যাস্ বাপুরে?
আয় বাবা দেখে যা, দুটো সাপ রেখে যা
যে সাপের চোখ্ নেই, শিং নেই, নোখ্ নেই,
ছোটে না কি হাঁটে না, কাউকে যে কাটে না,
করে নাকো ফোঁস্‌ফাঁস্, মারে নাকো ঢুঁশ্‌ঢাঁশ,
নেই কোনো উত্‍‌পাত, খায় শুধু দুধ ভাত
সেই সাপ জ্যান্ত গোটা দুই আন্ তো!
তেড়ে মেরে ডাণ্ডা ক’রে দিই ঠাণ্ডা।

                                                 —সুকুমার রায়

অনেক অনেক দিন আগে আমার গুরু(!!) সুকুমার রায়ের এই কবিতা পড়ে বুঝতে পারছিলাম না, গুরু আসলে কি চাচ্ছেন। আচ্ছা আপনি নিজেই  ভাবুন তো এমন কোন সাপের ছবি যার কিনা আবার চোখ , নখ, শিং এসব নাই। কল্পনা করতে খুব কষ্ট হচ্ছে নিশ্চয়ই । থাক আর কষ্ট করতে হবে না, আমি বরং আপনাদের সাহায্য করি । সেটি আসলে  পাইথন(!) না যা ভাবছেন তা নয়, (ও হ্যাঁ বলে রাখি অনেকে পাইথন কে ভুলে অজগর ভাবেন আসলে তা হচ্ছে ময়াল সাপ আর অজগর হচ্ছে (Boa) বোয়া) এটি আসলে বাস্তবিক পক্ষে কোন সাপই  নয়!!!

পাইথন লোগো

নিশ্চয়ই ভাবছেন কি মুসিবত রে বাবা এই ছেলের মাথা কি ঠিক আছে একবার বলছে পাইথন আবার বলছে সেটা নাকি আবার সাপ না!? না আমার মাথা ঠিকই আছে, এটি আসলেই কোনো সাপ নয় এটি আসলে একটি ভাষা(!) তবে জানেন কি এই ভাষায় প্রেমিকার সাথে কথা বলা যায় না 😛 এটি আসলে কম্পিউটার এর একটি ভাষা বা প্রোগ্রামিং ল্যংগুয়েজ ।

১৯৯১ সালে ডাচ কম্পিউটর বিজ্ঞানী গুইডো ভ্যান রোসাম এটি প্রথম প্রকাশ করেন (অবশেষে গুরু সুকুমার রায় এর মনের মত একটি সাপ পাওয়া গেল!! )। এখন হয়ত ভাবছেন প্রোগ্রামিং ল্যংগুয়েজগুলোতো এমনিতেই মানুষজনকে কুপোকাত করে ফেলে এর আবার চোখ, নখ, শিঙের দরকার কি!? যদি তাই মনে হয় তবে বলি, না ভয় পাবার দরকার নাই, কারন গুইডো সাহেব এইটা বুঝেই হয়ত ভাষাটি এমন ভাবে তৈরি করেছেন  যাতে এটি কবিতার(!) মত পড়া যায়। মানে আমাদের ভাষার কাছাকাছি আরকি। গুইডো সাহেব আবার মানবতাবাদী মানুষ তাই তো তিনি মানুষের চাইতে যন্ত্রকে খাটাতেই বেশি পছন্দ করেন, তাই এই ভাষায় অল্প লিখেই অনেক কিছু করে ফেলা যায়। তাই বলে আবার ভাববেন না যে এটি নিম্ন মানের ভাষা , উইকি সাহেব কে জিজ্ঞেস করে দেখুন তিনি বলবেন এটি উচ্চস্তরের ভাষা ।

আচ্ছা বাবা বুঝলাম এটি উচ্চস্তরের ভাষা কিন্তু কেন?

যা ভয় পাচ্ছিলাম তাই করলেন,  দিলেন তো আমায় ফাঁসিয়ে  ! যাই হোক বলার চেষ্টা করছি, আসলে যে ভাষা গুলো নিম্নস্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা থেকে আরও বিমূর্ত (Abstract), আরও সহজে ব্যবহার করা যায় ও বহন করা যায় সেগুলোই উচ্চস্তরের ভাষা। যেমন সি, জাভা ইত্যদি। পাইথনেও এই সুবিধা গুলো আছে তাই একে উচ্চস্তরের ভাষা বলা হয়।

আচ্ছা বুঝলাম কিন্তু এতে আর কি কি সুবিধা আছে?

*  পাইথন সম্পুর্ন মুক্ত বা ওপেন সোর্স  অর্থাৎ আপনি এটি বিনামুল্যে ব্যবহার করতে পারবেন  এবং  এর যেখানে ইচ্ছা সেখানে পরিবর্তন করতে পারবেন।

* এটি একটি ক্রস প্ল্যাটফর্ম টুল, অর্থাৎ আপনি এটিতে কোন প্রোগ্রাম লিখলে তাকে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে চালাতে পারবেন।

* আগে বলেছিলাম যে এতে খুব কম লিখে অনেক কিছু করা যায় তার কারন এর সিন্ট্যাক্স ও সিমান্ট্যক্স খুব সংক্ষিপ্ত।

পাইথন

ঠিক আছে বুঝলাম যে আপনি বড় বেশি কথা বলেন… এবার বলেন এটা দিয়ে কি করা যায়?

আরে ভাই বাঙ্গালীর এই গুণ(!!) না থাকলে চলে, 😛 যাই হোক এটি দিয়ে আসলে ডেস্কটপ থেকে ওয়েব সব ধরনের এপ্লিকেশনই তৈরী করা যায় । যেমন মায়া, গিম্প, ইঙ্কস্পেস ইত্যদি ডেস্কটপ এপ্লিকেশন গুলো পাইথনে করা। অন্যদিকে ইউটিউব, ইয়াহু গ্রুপস ইত্যাদি ওয়েব এপ্লিকেশন গুলো ডিজাইন করা হয়েছে পাইথনে। এছাড়াও গুগুল সাহেব তার সার্চ ইঞ্জিনে জাভার পাশাপাশি পাইথন ব্যবহার করে। আর আপনাদের মাঝে যারা ওয়ান ল্যাপটপ পার চিলড্রেন (OLPC) এর নাম শুনেছেন তারা হয়ত সুগার এপস এরও নাম শুনে থাকবেন, এই অতি মিষ্ট এই এপস গুলিও পাইথন সাহেবের সাহায্যে ডেভলপ করা হয়ে থাকে।

যাই হোক আজ আর কথা বাড়াচ্ছি না এমনিতেই যথেষ্ট বিরক্ত করেছি… তবে যাবার আগে আর একটু কথা বলে যাই সেটা হল  এই ভাষার নাম পাইথন রাখা হয়েছে কোন সাপের নামে নয় বরং সেটা ছিল বিবিসি তে প্রচারিত কমেডি গ্রুপ মন্টি পাইথনের কমেডি সিরিজ “মন্টি পাইথনস ফ্লাইং সার্কাস” এর নামে।  আমাদের গুইডো সাহেব আবার তার পোকা ছিলেন এবং যথারীতি তিনি এই ভাষা তৈরি করার পর তার নাম দিলেন পাইথন!!

.

9 thoughts on “বাবুরাম সাপুড়ে!!!!”

  1. Wow, amazing blog layout! How long have you been blogging for? you made blogging look easy. The overall look of your web site is great, let alone the content!. Thanks For Your article about বাবুরাম সাপুড়ে!!!! | টিউটোরিয়ালবিডি .

  2. Mohammad rezaul huq

    পাইথনের নাম শুনেছি অনেক। কিন্তু ভিতরে কখনও প্রবেশ করেনি। আপনার টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে প্রথম পাইথন সম্পর্কে ধারণা। আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। পরবর্তি টিরটোরিয়ালের আশায় সময় গুনছি।আশা করি খুব শীগ্রই পাবো। আবারো আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

    1. মহিউদ্দিন

      আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ কমেন্ট করার জন্য… আর পরের পর্ব ইনশাআল্লাহ এই সাপ্তেহের শেষে পোস্ট করতে পারব 🙂

  3. আরেফিন

    সুন্দর হয়েছে। আশা করি ভবিষ্যতে আমার মতো যারা কিছু প্রোগ্রামিং বুঝে না তাদের জন্য সহজ সরল ভাষায় বুঝিয়ে দিবে। 🙂

    1. মহিউদ্দিন

      ধন্যবাদ আরেফিন আর প্রেরনা দেওয়ার জন্য ধন্যপাতা 😛

  4. আমার কাজে লাগবে, আমি এখন পাইথন নিয়ে কাজ কর্তেসি

    Thanks…

  5. মুক্তাদির

    khelte khelte Python sekhanor ekti shuchintito proyash bolei mone hocche.. Mohiuddin k ovinondon.. !!! chalye jao bro..

Comments are closed.