প্রোগ্রামের সাধারণ গঠন-প্রোগ্রামিং ইন সি লার্নিং কনটেস্ট(২)

pinCপ্রোগ্রামিং ইন সি লার্নিং কনটেস্ট এর উদ্বোধনী পর্বে আমরা CodeBlocks ইন্সটল করার পদ্ধতি এবং CodeBlocks ব্যবহার করে প্রোগ্রাম লেখার পদ্ধতি দেখেছি। আজ আমরা প্রোগ্রামিং ইন সি তে লেখা প্রোগ্রামের সাধারণ গঠন সম্পর্কে জানব।

প্রোগ্রামিং ইন সি তে লেখা প্রোগ্রামের সাধারণ গঠন

  • ডকুমেন্টেশন সেকশন
  • লিংক সেকশন
  • ডেফিনেশন সেকশন
  • গ্লোবাল ডিক্লারেশন সেকশন
  • মেইন ফাংশন
  • সাব ফাংশন

11

ডকুমেন্টেশন সেকশন

এই অংশে প্রোগ্রাম সম্পর্কিত তথ্য উপস্থাপন করা হয়। যেমন প্রোগ্রামটি কি কাজের উদ্দেশ্য্ লেখা হয়েছে, কোডারের নাম, প্রোগ্রাম তৈরির তারিখ ইত্যাদি কমেন্টের উপস্থাপন করা হয়। প্রকৃতপক্ষে এটি প্রোগ্রামের কার্যকারিতায় কোন ভূমিকা রাখে না, যেহেতু ডকুমেন্টেশন সেকশন কমেন্টের উপস্থাপন করা হয় তাই কম্পাইলার এই অংশ কম্পাইল করে না। কিন্তু ডকুমেন্টেশন সেকশন প্রোগ্রাম আপডেট, পরিবর্তন এবং পরিবর্ধনে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

উদাহরণ

/************************************

*

* Purpose: Basic C program

* Author:  Ashim kumar pall

* Creation date:    05-June-2013

*

*******************************/

লিংক সেকশন

এই অংশে বিভিন্ন ধরণের প্রি প্রোসেসর স্টেটমেন্ট সমূহের মাধ্যমে সি প্রোগ্রামের লাইব্রেরী ফাংশন সমূহ বা বিল্ট ইন ফাংশন সমূহ ব্যবহারের জন্য লিংক করা হয়। যেমন printf() ফাংশনটি ব্যবহারের জন্য #include <stdio.h> প্রি প্রোসেসর স্টেটমেন্টটি যুক্ত করতে হয়। প্রতিটি প্রি প্রোসেসর স্টেটমেন্ট শুরু হয় # সিম্বল দিয়ে। stdio.h কে স্ট্যান্ডার্ড ইনপুট আউটপুট হেডার ফাইল বলে।

ডেফিনেশন সেকশন

অনেক সময় প্রোগ্রামের মধ্যে আমাদের কনস্ট্যান্ট সংখ্যা ব্যবহারের প্রয়োজন পরে, এক্ষেত্রে ডেফিনেশন সেকশনে প্রি প্রোসেসর স্টেটমেন্ট ব্যবহার করে কনস্ট্যান্ট সংখ্যা সমূহ নির্ধারণ করা হয়। যেমন #define PI 3.1416  ।

গ্লোবাল ডিক্লারেশন সেকশন

গ্লোবাল ডিক্লারেশন সেকশনে বিভিন্ন ধরণের গ্লোবাল ভেরিয়েবল সমূহ ডিক্লেয়ার করা হয়, যে সকল ভেরিয়েবলের প্রভাব সকল ফাংশনের মধ্যেই কার্যকর থাকবে।

যেমন

#include <stdio.h>

int a,b,c,result;

a=10;

b=20;

c=5;

int main()

{

result=a+b+c;

printf(“%d”,result);

return 0;

}

উপরের প্রোগ্রামটিতে a,b,c,result গ্লোবাল ভেরিয়েবল।

 

মেইন ফাংশন

প্রতিটা সি প্রোগ্রামেই একটা মেইন ফাংশন থাকে, যার মধ্যে অন্যান্য স্টেটমেন্ট সমূহ লেখা হয়, অন্যান্য ফাংশন সমূহ কল করা হয়।যেমন

int main()

{

result=a+b+c;

printf(“%d”,result);

return 0;

}

এখানে int main দেয়া হয়েছে কারণ, মেইন ফাংশনটি ইন্টিজার টাইপ ডাটা রিটার্ন করে। কখনো কখনো void main(){}ও ব্যবহার করা হয়। এক্ষেত্রে কোন ভ্যালু রিটার্ন করবে না।

সাব ফাংশন

মেইন ফাংশন ছাড়াও প্রোগ্রামে বিভিন্ন ধরনের কাজের জন্য অন্যান্য ফাংশন সমূহ তৈরি করা হয় যা সাধারণত মেইন ফাংশনের বাইরে লেখা হয় এবং প্রয়োজনে মেইন ফাংশনের মধ্যে কল করা হয়।

………………………………………………………………………………..

জ্ঞন বিজ্ঞানের সংস্পর্শে আলোকিত একটা সুন্দর সমৃদ্ধ পৃথিবীর প্রত্যাশায় আজ এখানেই শেষ করছি। সকলের জন্য শুভকামনা রইল ।

1 thought on “প্রোগ্রামের সাধারণ গঠন-প্রোগ্রামিং ইন সি লার্নিং কনটেস্ট(২)”

Comments are closed.