কম্পিউটার ট্রাবলশুটিং – পর্ব ১

আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই? আজ থেকে শুরু হচ্ছে আমাদের কম্পিউটার ট্রাবলশুটিং এর উপর নতুন ধারাবাহিক টিউটোরিয়াল।

পরের পোস্ট ই-মেইলে পেতে সাবস্ক্ইব করুন।:

ই-মেইলের লিংকে ক্লিক করে একটিভেট করে নিন। FeedBurner

সমস্যা হবার সুযোগ থাকলে তা হবেই মাথা থাকলেই মাথা ব্যথা হবে। কম্পিউটার থাকলে সেটাতে সমস্যা দেখা দেবে এটাই নিয়ম। অন্তত সাত দিনে একবার সাধারণ সমস্যা, মাসে একবার কপাল কুঁচকে চিন্তিত হয়ে পড়ার মত সমস্যা, বছরে দুইবার, কপাল খারাপ থাকলে তিনবার মাথা খারাপ ও পকেট খারাপ করে দেবার মত সমস্যা দেখা দেবে। এটা বাস্তব অভিজ্ঞতালব্ধ তথ্য। যার এসব ঘটে না, হয় তিনি বিশাল বড় কপাল, মানে ভাগ্যবান মানুষ নয়ত তিনি তার কম্পিউটার নামক যন্ত্রটি একদমই ব্যবহার করেন না। টেনেটুনে হয়ত মাসে বছরে এক দু-বার। অনেকে অনেকভাবে কম্পিউটার সমস্যাগুলোকে ভাগ করবে। আমরা কাজটা করব একটু ভিন্নভাবে। একজন মানুষ যখন কম্পিউটার চালাতে যায়, তাকে প্রথম থেকেই নানারকম সমস্যার মুখে পড়তে হতে পারে। কম্পিউটার চালানোর বিভিন্ন পর্যায় এবং সেই সব সময়ের সম্ভব্য নানারকম সমস্যা ও তার সম্ভব্য নানারকম সমাধান আমি এখানে ধারাবাহিকভাবে তুলে ধরতে চেষ্টা করব। আজ আমরা আলোচনা করব উইন্ডোজ ইন্সটলেশন সমস্যা নিয়ে।

উইন্ডোজ ইন্সটলেশন সমস্যা

উইন্ডোজ ইন্সটল করার সময় অনেক রকম সমস্যা হতে পারে। বেশিরভাগ সময় দেখা যায় ইন্সটলেশন এক জায়গায় স্থির হয়েছে তো হয়েছে। আর কোনও অগ্রগতি নেই। অনেক সময় বিভিন্ন এরর মেসেজ দেখায়। অনেক সময় ফাইল পড়তে পারে না বলে জানায়। বেশির ভাগ সময় সমস্যা করে বুটেবল ডিস্ক ও হার্ডওয়্যার। ডিস্কে দাগ থাকলে অথবা আপনার অপটিক্যাল ড্রাইভটি দুর্বল হলে ফাইল রিড করতে সমস্যা করে। তখন নানা রকম এরর মেসেজ দেখায় ফাইল মিসিং বলে।

winxp

তখন নতুন ডিস্ক দিয়ে আবার ট্রাই করতে পারেন অথবা অপটিকাল ড্রাইভের লেজারটি পরিষ্কারের ব্যবস্থা নিতে পারেন। অনেক সময় পিসির সাথে এমন কোন হার্ডওয়্যার থাকে যেটাকে সেটআপ প্রোগ্রাম চিনতে পারে না। তখন ইন্সটলেশন থামিয়ে দেয়। এরকম অবস্থায় আপনি জরুরি নয় এমন সব ডিভাইস খুলে সেটআপ চালিয়ে নিতে পারেন।

win7

প্রিন্টার, স্ক্যানার, বিশেষ করে এক্সটারনাল ইউএসবি হার্ড ড্রাইভ অনেক সময় সমস্যার কারণ হয়। এত কিছুর পরও যদি কোনও কাজ না হয় তবে যে এরর মেসেজ দেখাচ্ছে তার নম্বর নোট করে রাখুন। ইন্টারনেট বা মাইক্রোসফট-এর ওয়েবসাইটে সার্চ দিলে এই নম্বর কি সমস্যা নির্দেশ করছে তার ধারণা পেয়ে যাবেন।

আজকের মত এখানেই শেষ করছি। আগামী পর্বে আরও নতুন কিছু নিয়ে হাজির হওয়ার চেষ্টা করব। সেই পর্যন্ত সবাই ভাল থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

আগামী পর্বে থাকবে: উইন্ডোজ বুট সমস্যা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।

1 thought on “কম্পিউটার ট্রাবলশুটিং – পর্ব ১”

Comments are closed.