সোফিয়া সম্পর্কে তথ্য

রোবট সোফিয়া Sophia সম্পর্কে অনেকেই বেশ আগ্রহী। আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে যারা কাজ করেন তাদের জন্য আরো বেশি আগ্রহ তৈরী করবে হয়তো বাংলাদেশের সোফিয়ার আগমন।

সামাজিক নেটওয়ার্কে সোফিয়া নিয়ে নানান রকমের কথা বার্তাও চলেছে সৌদি আরব যখন একটি রোবটকে তাদের নাগরিকত্ব দিয়েছেন।

 

পয়েন্ট আকারে তুলে ধরছি যা বিভিন্ন ইংরেজি ওয়েবসাইটের তথ্য থেকে জেনেছি।

  • হংকং ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হ্যানসন রোবোটিকস তৈরী করে এ রোবট।
  • সোফিয়া আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্স ব্যবহার করা রোবট। সে ধিরে ধিরে নতুন নতুন তথ্য যোগ করছে তার তথ্য ভান্ডারে।
  • এটি ফেসিয়াল রিকগনিশন ব্যবহার করে মানুষের অবস্থান বুঝতে পারে।
  • ভয়েজ রিকগনিশন টেকনোলজী (যা গুগল থেকে নেওয়া) ব্যবহার করে এটি মানুষের কথা বুঝতে পারে।
  • চ্যাটবটের মতো মানুষের প্রশ্নের উত্তর প্রদান করতে পারে। আর তাই এটির প্রশ্নউত্তরের মান দিন দিন উন্নত হবে।
  • সোফিয়ার সবচেয়ে আকর্শনিয় বেপার হলো তার মানুষের মতো চেহারা। আর তার চেহারায় ম্যাকানিক্যাল ত্বক লাগানো হয়েছে যার মাধমে হাসি, দুঃখি, আনন্দিত ফুটিয়ে তুলতে পারে। চেহারায় Frubber টেকনোলজী ব্যবহার করা হয়েছে। যেটির উপরে রাবারের ত্বক ও ভেতরে ম্যাকানিক্যাল ইঞ্জিন।

সামাজিক নেটওয়ার্কে সোফিয়াকে নিয়ে-

সৌদি আরব প্রথম দেশ যে একটি রোবটকে নাগরিকত্ব প্রদান করেছে। আর তারপরই সামাজিক নেটওয়ার্কে অনেকে অনেক কথা বলেন। কেউ বলেন, সোফিয়াকে কি হিজাব পড়তে হবে? যেহেতু সেখানকার মেয়েদের হিজাব বাধ্যতামূলক। সোফিয়া কি ইসলাম ধর্মে দিক্ষিত হয়েছেন এমন প্রশ্নও অনেকে করেন?

বাংলাদেশের সোফিয়ার আগমন নিয়েও অনেকে চিন্তিত।

সোফিয়ার ইন্টারভিউ ভিডিও দেখতে পারেন ইউটিউবে