Nokia বা হেন্ডসেট আবিস্কারের ইতিহাস

1.Nokia কম্পানি ও নামকরন ১৮৬৫-১৯৩০

মোবাইল ফোন বললেই আমরা Androyed ,smart & i phon-samsong এর মতো ব্রেন্ডের কথা বুঝে থাকি । তবে প্রকৃতপক্ষে এই মোবাইল ফোন আবিষ্কার করে বা এর সূচনা শুরু হয় নকেয়া ‘Nokia’ কম্পানি থেকে যা আজ ব্রেন্ডের জগতে আনেক নিচে ডুবে রয়েছে ।

এই নকেয়া আবির্ভাব হয়েছে ১২ই মে ১৮৬৫ সালে ফিনিশ-সুইডেন মাইনিং ইঞ্জিনিয়ার Fredrik Idestam ফিনল্যান্ডের তম্পেরে শহরের কাছে একটি তড়িত মিল স্থাপন করেছিলেন । উন্নত জলবিদ্যুৎ সংস্থান সরবরাহ করে পার্শ্ববর্তী শহর নোকিয়ার কাছে ১৮৬৮ সালে একটি দ্বিতীয় পাল্প মিল চালু করা হয়েছিল। ১৮৭১ সালে, ইস্তেস্তাম, বন্ধু লিও মেসেলিনের সাথে একত্রিত হয়ে একটি শেয়ার্ড সংস্থা গঠন করে এবং দ্বিতীয় পাল্প মিলের সাইটটির পরে একে নোকিয়া আব রাখা হয় ।১৮৯৬ সালে ইডেস্তাম অবসর নিয়েছিলেন এবং মেসেলিনকে কোম্পানির চেয়ারম্যান করে তুলেছিলেন। ১৯০২ সালের মধ্যে মেশিন বিদ্যুৎ উৎপাদনে প্রসারিত হয় যা ইডেস্টাম বিরোধিতা করেছিল।

১৯০৪ সালে এডুয়ার্ড পোলেন প্রতিষ্ঠিত একটি রাবার ব্যবসা সুমেন গুমাইটেহদাস নোকিয়া শহরের কাছে একটি কারখানা স্থাপন করে এবং নোকেয়ার নাম ব্যবহার করে। ১৯২২ সালে নোকিয়া আব ফিনিশ রাবার ওয়ার্কস এবং কেপেলিটহেদাস বা কেবল কারখানা এর সাথে একটি অংশীদারিত্ব করে, যার সমস্ত যৌথভাবে Polón এর নেতৃত্বে দেওয়া হয়।

2.Nokia মোবাইল ও মোববাল আবিস্কার ১৯৩০-১৯৮০

ফিনিশ রাবার ওয়ার্কস সংস্থাটি যখন ১৯৩০ এর দশকে নোকিয়া অঞ্চলে বৈদ্যুতিক বিদ্যুত সরবরাহের সুযোগ নিতে চলে আসে তখন দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছিল এবং তারের আবিষ্কার টি তারাই করেছিল । এভাবে একটানা ৫০ বছর তারা ব্যাবসা চালিয়ে যায় ।এরপর ১৯৯০ সালে হটাৎ মটরফোন আবিষ্কার হওয়ার পর এর চাহিদা বেড়ে যায় ।

মবাইল্টি ছিল এক একটি ২ পাওন্ডের তখনই এই ভারি যন্ত্রটি হাল্কা ও বহন সহজলভ্য করার জন্য রেডিও ,টেলিফন সুইচ,ক্যাপাসিটার এবং রাসায়নিক কম্পানিরা একসাথে সামনযাস্ব হয়ে এই নকেয়া ফনের আবির্ভাব ঘটায় । ১৯৬০ এর দশকে সোভিয়েত ইউনিয়নের সাথে ফিনল্যান্ডের বাণিজ্য চুক্তির পরে নোকিয়া সোভিয়েতের বাজারে এর চাহিদা বারতে থাকে। এটি শীঘ্রই অন্যদের মধ্যে স্বয়ংক্রিয় টেলিফোন এক্সচেঞ্জ থেকে শুরু করে রোবোটিক্স পর্যন্ত বাণিজ্যকে আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠে । ১৯৭০ এর দশকের শেষের দিকে সোভিয়েত ইউনিয়ন নোকিয়ার জন্য বিক্ষাত্য হয়,যার ফলে উচ্চ মুনাফা অর্জনে সহায়তা করেছিল। নোকিয়া সোভিয়েত ইউনিয়নের সাথে বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তিতেও সহযোগিতা করে । নোকিয়া যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি অনেকগুলি উপাদান আমদানি করেছিল এবং সেগুলি সোভিয়েতদের জন্য ব্যবহার করত এবং মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, রিচার্ড পারেলের মতে, নোকিয়া পেন্টাগনের সাথে একটি গোপন সহযোগিতা করেছিল যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রযুক্তিগত উন্নয়নের উপর নজর রাখতে পেরেছিল নোকিয়ার সাথে ব্যবসায়ের মাধ্যমে। এটি উভয় পক্ষের সাথে ফিনল্যান্ডের ব্যবসায়ের একটি প্রদর্শন ছিল, কারণ এটি শীতল যুদ্ধের সময় নিরপেক্ষ ছিল।

3.Nokia উথ্যান ও পতন ১৯৮০-২০০৬

১৯৮০ সালে এই নকেয়া মোবাইলের উন্নতি দেখে TV ,ইলেক্টনিক্স সহ আরও অনেক কম্পানি এসে যোগ দেয় এই নকেয়া কম্পানির সাথে ।১৯৮৮ সালের ১ এপ্রিল, নোকিয়া এরিকসনের ইনফরমেশন সিস্টেমগুলির কম্পিউটার বিভাগ কিনেছিল । যার ফলে দেখা যায় এ কম্পানির আয়ের হার আত বেড়ে যায় যে নোকিয়ার আয় উপার্জনটি ২.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পরিণত হয়েছিল। ১৯৯২ থেকে ২০০৬সাল পর্যন্ত পুর মহাবিস্বে এই কম্পিনি শুধু নতুন নতুন রেকর্ড গর্তে থাকে ।

কিন্তু হটাত Apple কম্পানি প্তিদন্ডিতা করতে করতে ২০০৭ সালে বের করে i phone যা খুব তাড়াতাড়ি মানুষের মন জয় করে ও ইন্টারনেটের যগতের বাস্তবতাকে মানুষের কাছে তুলে ধরে । এর ভিতর আসে ২০০৮ সালে Google কম্পানি থেকে Androyed যা কোন প্রকার তথ্য দেওয়া ছারাই নিযের মতো সাজিয়ে ব্যাবহার করা যেত । কিন্তু তখন i phone সহ আরও অনান্য কম্পানি এটিকে তাদের ওপারেটিং সিস্টেম হিসেবে নিলেও Nokia আটিকে প্রত্যাখান করেন কেন না তখন নকেয়া কম্পানির চেয়ারমেন মাইক্রস্ফট কম্পানির সাথে সাথে মোটা টাকার অংকে বিক্রি হয়ে যাওয়ায় ।

যার ফলে তারা তাদের মাইক্রস্ফটকে সবার কাছে তুলে ধরার জন্য নকেয়ার টাচ মডেলের ওপারেটীং সিস্টেম মাইক্রস্ফট করে । কিন্তু মাইক্রস্ফট সাধারন জনগনের কাছে ব্যায়ভুল ও তেমন কোন প্রযজনিও সিস্টেম না হওয়ায় Nokia আস্তে আস্তে পুর দমে শেষ হয়ে যেতে থাকে ।এমনকি একসময় তা সব ব্রেন্ডের নিচে চলে যায় ।

মানুষ আন্ড্রেড চালাতে চালাতে এখন এটি ছারা অন্য কোন ওপারেটিং সিস্টেম বুঝেই না তাই নকেয়া কম্পানি তার ভুল বুঝতে পেরে এখন Androyed কে তার ওপারেটিং সিস্টেম বানিয়ে বাজারে ছারা শুরু করেছে ।কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে Androyed আসার পর যে যে কম্পানি আটিকে তাদের অপারেটিং সিস্টেম বানিয়েছে তারা সকলেই এখন ঊরধ্মুখি । তাই নকেইয়ার এখন ও কোন আর ঊন্নতি দেখা যায় নি ২০০৬ সালের পর থেকেAndroyed হওয়ার পরেও ।

2 thoughts on “Nokia বা হেন্ডসেট আবিস্কারের ইতিহাস”

Leave a Comment