অলিম্পিক এর ইতিহাস

প্রচীন গ্রিসের জতীয় প্রতিযোগিতাকে কেন্দ্র করে অলিম্পিক খেলার উদ্বধন হয়েছে।এলিস পরদেশে অলম্পিয়া উপত্তকায় জিসু খ্রীষ্টের বহু আগে থেকে এই অলিম্পিকের জন্ম হয়।কিং প্রদন্তি এই অলম্পিয়া ছিল গ্রিক দেবতা জুসের আবাস ভূমি।এখানে পলপস এবং কুইনোাস নামে দুই ক্রিয়াবিদের দৌড় পতিযোগিতা থেকে এই অলম্পিকরের সূচনা হয়।এরপর খ্রিষ্টপূর্ব ৭৮৬ অব্দ থেকে পর পর চার বছর পর পর অলিম্পিক ক্রিয়া প্রতিযোগিতা শুরু য়। তাথিম ভাষায় অলিম্পিক শব্দের অর্থ হচ্ছে চার বছরের ব্যবধান।

৩৯৩ খ্রিষ্টাব্দে রোমানসম্রাট থেয়োডারিয়েসের নির্দেশে অলিম্পিক ক্রিয়া প্রতিযোগীতা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এই অলিম্পিকের শুরুর দিকে গেমসটি ছিল মাত্র একদিনের দৌড় প্রতিযোগিতা।এরপর রর্থচালনার আরো কিছু প্রতিযোগিতা এর সাথে যুক্ত করা হয়। অনুষ্ঠানটি চলে এর সপ্তাহর মতো।এরপর নদীর ওপারের কিছু মানুষ এসে এই প্রতিযোগিতায় জন্ম গ্রহন করে।তবে আদিকালে মেয়েদের অলিম্পিকে অংশগ্রহনে নানা বিধি বিধান আরোপ করা হয়েছিল।সে সময় দর্শকদের জন্য ইস্টিডিয়াম ও ছিল। দর্শকদের বসার জন্য পাথর দেওয়া হতো জাগায় জাগায়।এবং অনুশীলনের জন্য গড়া হয়েছিল বিজয় স্থল, শরীর চর্চসর জায়গা এবং অনুশীলন করার মাঠ। তারা দেবতাদের রাজা বলে স্বিকৃত জিসুর মুর্তিটি অলিম্পিকের মাঝে রাখা এটি সবার দৃষ্টি আর্কষন করে। ৬ষ্ঠ সতাব্দিতে বন্যা ও প্লাবনের কারনে অলিম্পিক মাঠ ও অনুষ্ঠান প্রাঙ্গনটি ভূগর্বে চলে যায়।এরপর ও মানুষ ভুলে যায় এই অলিম্পিকের কথা।এরপর ১৮৭৫-১৮৮১ সালে একজন প্রত্নত্রান্তিক অলিম্পিকের ধ্বংস বিশেষ আবিষ্কার করে।১৮৯৪ সালে অলিম্পিকের নতুন করে শুরু হওয়ার পথ দেখা যায়।

কিন্তু এই ব্যাপারে ফ্রান্সের মনিষির অবদান অনেক। মূলত তার উৎসাহে অলিম্পিক পূনরায় অনেকগুলো দেশের লোকের অংসগ্রহনের মাধ্যেমে ফ্রান্সে এটি অনুষ্ঠিত হয়।সেখানে বলা হয় এই যুগের প্রথম অলিম্পিক ক্রিয়া বিশ্বের রাজধানী অ্যাথেন্সে অনুষ্ঠিত হবে। এর ফলে ১৮৯৬ সালে অ্যাথেন্সে এই যুগে প্রথম অলিম্পিক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মোট ১২ টি দেশে এই অলিম্পিকে অংশগ্রহন করে।এরপর থেকে বিশ্বযুদ্ব ছাড়া বাকি সময় কোনো না কোনো দেশে অলিম্পিক খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।অ্যাথেন্সে নবপর্যায় ক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।এরপর প্যারিস, লনডন, মেলবন ইত্যাদিসহ বহুদেশে অলিন্পিকের আসর বসেছে।পৃথিবীর বৃহত্তম ক্রিয়া প্রতিযোগীতা হচ্ছে এই অলিম্পিক খেলা।এটি বিশ্বের মধ্যে ভ্রাতৃত্বের সাথে গড়ে ওঠেছে।

1 thought on “অলিম্পিক এর ইতিহাস”

Comments are closed.