ক্রিকেট খেলার ইতিহাস

ক্রিকেট খেলা হচ্ছে একটি জনপ্রয় খেলা। এই খেলার জন্ম ইংল্যান্ড। কিন্তু এর জন্ম নিয়ে মানুষের একটু মতবাদ রয়েছে।অনেকে বলে ক্রিকেট খেলার জন্ম ভারতের উপমহাদেশের পান্জাব অঞ্চলের দোয়াব এলাকায়।

সপ্তম শতাব্দিতে সেই অঞ্চলে প্রথমে বেট এবং বল নামে একটি খেলা খেলা হতো।এরপর আস্তে আস্তে অষ্টম শতাব্দিতে ইউরোপে খলাটি প্রচলন হওয়া সম্পর্কে জানা যায়। ভারতের মানুষরা, তুরুষ্কে গিয়ে এই খেলাটি খেলে থাকে।এরপর ইউরোপের মানুষরা খেলাটি দেখে তারা ও খেলতে শুরু করে।

এইভাবে ইউরোপে খেলাটি প্রচলিত হয়ে যায়।বলের সাথে ব্যাট এর উদ্ভবন হয় ভারতে।সেখানে ব্যাটকে ডান্ডা বলা হতো।১০৬৬ খ্রিষ্টাব্দের পর এই খেলাকে নাম দেওয়া ওয় ক্রি বা ক্রিকে।তখন প্রতি সাপ্তাহে একবার এই খেলাটি খেলা হতো।এরপর ১৪০০ খ্রষ্টাব্দে শুরু হয় রাজ্য জয়ের পালা।তখন এই ক্রিকেট নামক খেলাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এটি ১৫০০ সাল পর্যন্ত চলতে থাকে এই রাজ্য বিজয়ের পালা।তখন ক্রিকেট খেলাকে দেখলেও তাকে শাস্তি দেওয়া হতো। এরপর ইউরোপের অর্থনৈতিক অবস্তা অনেক করুন হয়ে পড়ে।কিন্তুু এর পরেও ক্রিকেট খেলার ওপর কোনো প্রভাব পড়ে নি।১১০০ শতাব্দিতে যেটির নাম ক্রি বা ক্রিকে ছিল সেটির নাম ১৬০০ শতাব্দিতে ক্রিকেট নামে পরিচিতি লাভ করে। অনেক অলস জুয়ারি লোকেরা এই খেলা তুলে দেওয়ার জন্য অনেক কিছু করেছে।কিন্তু কোনো কিছুই এই ক্রুিকেট খেলাকে কিছু করতে পারে নি।এই ক্রিকেট খেলা আস্তে আস্তে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে।

১৭১৯ সালে ইংল্যান্ড দল নিয়ে জাতীয়ভাবে খেলা শুরু হয়।এরপর ১৭২১ সালে ভারতের ক্রিকেট খেলার প্রচলন হয় ইস্ট- ইন্ডিয়া কম্পানির মাধ্যেমে। এবং ১৭৪৪ সালে আধুনিকভাবে নিয়মকানুন মেনে এই ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয়।১৮৭৭ সালে জন্ম হয় টেস্ট ক্রিকেটের।ইতিহাসে প্রথম টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচে অংশগ্রহন করে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া। ১৮৮১-১৮৮২ সাল থেকে শুরু হয় মর্যাদাপূর্ন ক্রিকেট খেলা। ১৮৮৪ থেকে ১৮৮৯ সাল পর্যন্ত ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া ১৯টি টেস্ট খেলেছিল।

এর মধ্যে ইংল্যান্ড ১৪টি টেস্ট জেতে, অস্ট্রেলিয়া জেতে ৩টি, আর দুইটি টেস্ট অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়। ১৯০৯ সালে ক্রিকেট খেলাটি ইম্পেরিয়াল ভাবে স্বিকৃতি দেওয়া হয়। এরপর ১৯৫৬ সালে ইম্পেরিয়াল কথাটি ঠিক করে ইন্টারন্যাশন্যাল নাম দেওয়া হয়।

এটি ছোট করে বলতে গেলে আইসিসি।এরপর থেকে অন্যান্য দেশগুলো ক্রিকেট খেলায় একে একে পর্দাপন করে।টেস্ট খেলায় একেরপর এক দল আসতে থাকে।সাউথ আফ্রিকা ১৮৮৮ সালে পর্দাপন করে। অস্টেন্ডিস ১৯২৮ সালে পর্দাপন করে। ইংল্যান্ড ১৯২৯-৩০ সালে পর্দাপন করে। ভারত ১৯৩২ সালে পাকিস্তান ১৯৫২-৫৩ শ্রীলকা ১৯৮১-৮২ এবং বাংলাদেশ ১৩ নমেন্বর ২০০০ সাল। এরপর দেখা যায় অনেক দিন ধরে খেলা গুলো চলত।মানুষ কমে যাচ্ছিল আস্তে আস্তে।তারপর সকলের পরিকল্পনায় তারা ১৯৭১ সালে শুরু করে এক দিনের খলা ওয়ান্ডে। এই খেলায় দর্শক দেখা যায় অনেক। এইভাবে বর্তমান ক্রিকেট খেলার বিশ্বের জনপ্রিয় খেলা।