ಥ_ಥ ইন্টারনেটে আপনার পাসওয়্যার্ডকে হ্যাকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে!ಥ_ಥ

আসসালামুয়ালাইকুম, আমরা বোধহয় এখন পাসওয়্যার্ড চালিত পৃথিবীতে বসবাস করছি! চলতে ফিরতে সব কিছুতেই পাসওয়্যার্ড। কম্পিউটারে পাসওয়্যার্ড, মোবাইলে পাসওয়্যার্ড সব জায়গায় শুধু পাসওয়্যার্ড আর পাসওয়্যার্ড! যেন মেলা বসেছে পাসওয়্যার্ড-এর। যদিও এই পাসওয়্যার্ড কোন সাধারণ বস্তু না। কারো কাছে এটি নস্যি আবার কারো কাছে যখের ধন। ইন্টারনেটে সুরক্ষিতভাবে বিচরণ করতে আপনার প্রয়োজনীয় পাসওয়্যার্ড সঠিকভাবে ব্যবস্থাপনা করুন। নইলে হয়তোবা এই পাসওয়্যার্ড-এর জন্যই আপনাকে বেশ ঝামেলায় পড়তে হবে। এমনকি আপনার টিউটোরিয়াল বিডির পাসওয়্যার্ডকেও ভালো ভাবে মনে রাখুন।

ইন্টারনেটে বিভিন্ন সাইটে একান্ত প্রবেশের জন্য প্রয়োজন পাসওয়্যার্ড৷ এটি এমনই এক বিষয় যা মনে রাখা যেমন জরুরি, তেমনি কঠিন করাও আবশ্যক৷ কেননা সহজ পাসওয়্যার্ড আপনার অ্যাকাউন্টকে তুলে দিতে পারে হ্যাকারদের হাতে৷

আধুনিক হ্যাকারদের বিচক্ষণতায় সকলেই অভিভুত। তারা নিত্যনতুন কৌশল বের করছে পাসওয়্যার্ড হাতিয়ে নেয়ার জন্য। যেমনঃ Phising সাইট তৈরি, কি-লগার, নানা ভাবে প্ররোচনা মূলক ই-মেইল বা বিজ্ঞাপন সহ রয়েছে আরো বিভিন্ন পন্থা। এছাড়াও না জানা আরো অনেক পন্থা ব্যবহার করছে হ্যাকাররা।

নানা রকম প্রোগ্রামের বদৌলতে আট বর্ণের সাধারণ পাসওয়্যার্ড ভাঙতে পারে মাত্র দু’ঘন্টার মধ্যে৷ তবে যদি পাসওয়্যার্ড ভালো, কঠিন এবং ট্রিকি হয় তবে হয়তোবা সেই পাসওয়্যার্ড ভাংতে বেশ বেগ পেতে হবে হ্যাকারকে।

জর্জিয়া ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজির এক গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে ১২ বর্ণের বা অক্ষরের পাসওয়ার্ড অনেক নিরাপদ৷ অন্তত হ্যাকাররা বর্তমানে যে পদ্ধতিতে আট বর্ণের পাসওয়ার্ড দু’ঘন্টায় ভাঙে, একই পদ্ধতিতে ১২ বর্ণের পাসওয়ার্ড ভাঙতে সময় লাগবে ১৭,১৩৪ বছর! আর এই একই বিষয় আমি বেশ কয়েকটি বইয়েও পড়েছি।

হ্যকারদের হাত থেকে আপনার পাসওয়্যার্ড রক্ষা করতে যা যা করবেনঃ

১. আলাদা পাসওয়্যার্ড ইউজ করুনঃ

সব জায়গায় একই রকম পাসওয়্যার্ড ইউজ করাকে অনেকে সাপোর্ট করেন একারণে যে এতে করে পাসওয়্যার্ড মনে রাখা সহজ হয়, কিন্তু সব মিলিয়ে এটাই সবচেয়ে বোকামির কাজ! কখোনোই এমনটি মনে করবেন না যে “আমি অনেক সাইটের মেম্বার, এত পাসওয়্যার্ড মনে রাখতে পারবোনা, তাই একটা পাসওয়্যার্ড সব জায়গাতেই চালিয়ে দেই”। এমন মনে করলে আমি নিঃসন্দেহে বোকা। সকল স্থানেই আলাদা আলাদা পাসওয়্যার্ড ইউজ করবেন। যেমন আপনি টেকটিউন্সে যে পাসওয়্যার্ড ইউজ করেন সেই একই পাসওয়্যার্ড সামুর জন্য বা অন্য কোন ফোরামের জন্য ব্যবহার করবেন না। উদাহরণ হিসেবে যদি ফেসবুককে ধরি তাহলে বলা যায় ফেসবুক পাসওয়্যার্ড হিসেবে ৭৫% ব্যবহারকারী তার ইমেইল-এর পাসওয়্যার্ড ইউজ করে থাকেন। বিটডিফেন্ডার এর মতে অ্যামাজন আর পেপালের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। তাই পাসওয়্যার্ড রক্ষার্থে আলাদা পাসওয়্যার্ড ইউজ করা পূর্বশর্ত ।

২.কয়েকদিন পরপর পাসওয়্যার্ড চেঞ্জ করুনঃ

আপনি একটি কাপড় নিশ্চই দুই-তিন দিনের বেশি পড়েন না, সেক্ষত্রে আপনি কেন একই পাসওয়্যার্ড দিনকে দিন ব্যবহার করবেন? আপনার উচিত অন্তত পক্ষে মাসে একবার করে হলেও পাসওয়্যার্ড চেঞ্জ করা। এতে আপনা পাসওয়্যার্ড সুরক্ষিত থাকবে।

৩. কমোন পাসওয়্যার্ড ইউজ করা থেকে বিরত হোনঃ

আপনি যদি এমন কোন পাসওয়্যার্ড ইউজ করেন যা কিনা ডিকশনারিতে আছে, তাহলে কখনোই সেটা ভালো পাসওয়্যার্ড না! এমন পাসওয়্যার্ড ইউজ করবেন যার মানে ডিকশনারীতে তো দূরে থাক আপনি নিজেই জানেন না! এতে করে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন যে আপনি সুরক্ষিত পাসওয়্যার্ড ইউজ করছেন ১২৩৪ বা ৬৭৮ অথবা আপনার নাম কখনোই উত্তম পাসওয়্যার্ড না। এগুলো বের করতে হ্যাকারদের সেকেন্ডও লাগার কথা না।

৪.পাসওয়্যার্ড জেনারেটর ব্যবহার থেকে বিরত থাকুনঃ

অনেকেই উত্তম পাসওয়্যার্ড বানানোর জন্য পাসওয়্যার্ড জেনারেটর ব্যবহার করেন। কিন্তু আমি একে মোটেই সাপোর্ট করি না, কারণ কে জানে এই পাসওয়্যার্ড জেনারেটরই আপনার পাসওয়্যার্ডকে পৌছে দিচ্ছে হ্যাকারদের হাতে? নিজে থেকে যতটুকু পারা যায় ততটুকুই চেষ্টা করুন। যেমনঃ “আমার নাম অমুক” কে পরিণত করুন “কমুঅ মনা রমাআ” এজাতীয় পাসওয়্যার্ড সাধারণত হ্যকাররা অনুমান করতে পারে না।কার্নেগি ম্যালন ইউনিভার্সিটির গবেষকরা উদাহরন হিসেবে বলছে, এ জাতীয় পাসওয়্যার্ডটির কথা, ‘‘নো, দ্যা ক্যাপিটাল অফ উইসকনসিন ইজ নট সিজোপলিস!”

৫.পাসওয়্যার্ড শেয়ার করাঃ

কখোনোই কারে কাছে পাসওয়্যার্ড শেয়ার করবেন না, হোক তা যত তুচ্ছই। কেউ যদি আপনার পিসির পাসওয়্যার্ড জানতে চায়, তা বলা থেকেও বিরত থাকবেন।

৭.যেভাবে মনে রাখবেন পাসওয়্যার্ডঃ

ধরলাম আপনি পাসওয়্যার্ড তৈরি করলেন, এখন মনে রাখবেন কিভাবে? এক্ষেত্রে সফটওয়্যার ইউজ করা যেতে। আর সফটওয়্যারটি হচ্ছে কিপাস পাসওয়্যার্ড সেফ। প্রশ্ন করতে পারেন পাসওয়্যার্ড তৈরির জন্য সফটওয়্যার ব্যবহার করলাম না অথচ পাসওয়্যার্ড মনে রাখার জন্য সফটওয়্যার ব্যবহার করছি কেন? কারণ হল এই সফটওয়্যারটি খোদ পিসি ম্যাগাজিন এর মাধ্যমে রিভিউ কৃত। ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

পাসওয়ার্ড তৈরির ক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় মাথায় রাখা আবশ্যক৷ ইংরেজি ভাষায় অক্ষরের সংখ্যা ২৬টি হলেও কম্পিউটার কী বোর্ডে কিন্তু সব মিলিয়ে বর্ণ আর সঙ্কেত আছে ৯৫টি৷ তাই, সম্ভব হলে আপনার পাসওয়ার্ডে যোগ করুন কিছু সঙ্কেত৷ যেমন: ‘‘@Y;V%w$/%5/-”৷ এমন একটি পাসওয়ার্ড যদি বানাতে পারেন, তবে তা ভাঙার সাধ্যি কার!

আশা করি যা বোঝাতে চেয়েছি তা বুঝতে পেরেছেন। সকলকে ধন্যবাদ পোস্টটি পড়ার জন্য।

18 thoughts on “ಥ_ಥ ইন্টারনেটে আপনার পাসওয়্যার্ডকে হ্যাকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে!ಥ_ಥ”

  1. Wow, marvelous blog layout! How long have you been blogging for? you make blogging look easy. The overall look of your website is magnificent, let alone the content!. Thanks For Your article about ಥ_ಥ ইন্টারনেটে আপনার পাসওয়্যার্ডকে হ্যাকার আক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন যেভাবে!ಥ_ಥ | টিউটোরিয়ালবিডি .

  2. @ ডিজে আরিফ, আপনার ইসলামী ব্লগটা এইমাত্র চোখে পড়লো। বেশ পরিচ্ছন্ন সাইট বানিয়েছেন। আমি কিছু দিন ধরেই বাংলা একটি ইসলামী প্লাটফর্ম বানানোর কথা চিন্তা করছিলাম। তবে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি নাই।

    1. @টিউটো,
      পরিচ্ছন্ন সাইট বলতে আসলে আমি এখনও ভালো কোন ডিজাইন ঠিক করতে পারছি না, ডিজাইন খুজছি। যদি কেউ আমাকে আমার চাহিদা মত ডিজাইন করে দিতে পারে তাহলে এর জন্য টাকা খরচ করতে রাজি আছি। আপনার চেনা এমন কেউ কি আছে যে ওয়ারডপ্রেসের জন্য থিম ডিজাইন করতে পারে, তা যেন ওয়েব ২.০ ডিজাইন হয়।

      আর আশা করছি শীঘ্রই আপনি সঠিক সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারবেন। একই রকম চিন্তা আমার মাথায়ও ঘুরছে।
      যেহেতু শীবলীর মত আমিও ক্লাস নাইনেই পড়ি তাই ইংরেজী বিষয়ে খুব ভালো জ্ঞানযে আছে তা বলবোনা, তবে যা আছে তা দিয়ে মোটামুটি চালানো যায়, ধারণা করছি ভবিষ্যতে আরো শক্ত অবস্থানে থাকতে পারবো। কিন্তু সবমিলিয়ে বাংলাই আমার জন্য শ্রেষ্ঠ ব্লগিং প্লাটফরম। তাই বাংলাতে ইসলামিক ব্লগ করার চিন্তা আছে। পরীক্ষার পরেই ডিসিশন নেব।
      *উল্লেক্ষ আমার ইসলামিক ব্লগটির বয়স মাত্র ১০ দিন। আর ১০ দিনেই ১৩৮৭+ ভিজিটর এবং ২২১৮+পেজভিউ পেয়েছ। আশা করি আপনাদের দোয়ায় ভালো কন্টেন্ট দিয়ে ব্লগটিকে আরো ভালো করতে পারবো।
      ধন্যবাদ

  3. আনোয়ার মাহমুদ

    যতদিন কম্পুটার এ হাত দেব, সত্যি বলছি, আপনার কথা মনে থাকবে….আমরা যথেষ্ঠ উপকৃত হচ্ছি। -ভাল থাকবেন।

    1. @আনোয়ার মাহমুদ, মতামত দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ আনোয়ার মাহমুদ ভাই। পোষ্টের সাথে সাথে টিউটোরিয়ালবিডির মতামতেও আছে শিখার আনেক কিছু। শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে আমাদের পথ চলার সাথে আপনাকে পেয়ে আমরা আনন্দিত। ডিজে আরিফের লেখাগুলো বেশ উপকারী, সামনের দিনগুলোতে তিনি হয়তো আমাদের সাথে আরও অনেক কিছুই শেয়ার করবেন।

  4. আমি অবশ্য বিশ্বস্ত সাইটগুলোর জন্য এক ধরনের পাসওয়ার্ড, নিজের সাইটের জন্য আরেক ধরনের পাসওয়ার্ড আর অপেক্ষাকৃত কম বিশ্বস্ত সাইটের জন্য ভিন্ন ধরনের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করি। আপনার পোষ্টের পর কিছু পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

    তবে সাইটের পাসওয়ার্ডের ক্ষেত্রে ইউজারনেমটাও সিকিউরিটির একটা অংশ। ডিফল্ট ইউজারনেম Admin / Administrator না ব্যবহার করে ভিন্ন ইউজারনের ব্যবহার করার পরামর্শ দেব।

    আপনাকে ধন্যবাদ ডিজে, খুবই ভাল লেগেছে পোষ্টটি।

    1. @টিউটো,
      হ্যা আমি একমত আপনার সাথে পাসওয়ার্ডের পাশাপাশি ইউজারনেমটাও জরুরি, এটাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে। আর অবশ্যই সেগুলো জনসম্মুখে প্রকাশ করা যাবে না।

      আপনাকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ, মাহবুব ভাই।

    1. @ইমরান,
      ইমরান, আমি ভাই এটা কখনো ব্যবহার করে দেখিনি তাই সঠিকভাবে বলতে পারছিনা এটা কেমন, তবে আমার মনে হয় ব্যবহার না করাই শ্রেয়, কারণ কিছুদিন আগেই ক্যাস্পারস্কির ওয়েবসাইট হ্যাক হয়েছিল। যারা নিজেদের নিরাপত্তা দিতে অক্ষম তারা আমাদের নিরাপত্তা কি দেবে?

  5. ভালো পোস্ট বড় ভাই। আমি ৩২ সংখ্যা বিশিষ্ট কয়েটা পাস ব্যাবহার করি।

      1. @ডিজে আরিফ,
        হে হে আমার জিমেলের পাসকোড ৬৪ ডিজিটের আর সঙ্গে প্লাস,মাইনাস,গুণ,ভাগ ফ্রি………

        যারা এক পাসকোড সব সাইটে ইউস করতে চান তাদের জন্য টিপসঃ
        ২ টা পাসকোড বানান একটা সব ইমেল এ আর একটা সাইন আপে………………. 🙂

  6. কাজের পোষ্ট… ধন্যবাদ আপনাকে, সব মিলিয়ে চার পাঁচটা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করি, তাই কয়েকক্ষেত্রে রিপিট করতেই হয়। তবে রিপিটেড পাসওয়ার্ডের ক্ষেত্রে যেটা করি আলাদা সাইটের জন্য আলাদা আলাদা সংখ্যা বসিয়ে দেই মূল শব্দের সাথে।

    1. @মাশুদুল হক,
      হুম এটাও একটা ভালো পদ্ধতি, তবে এরকম কিছু এড়িয়ে যাওয়াই ভালো, কারণ কেউ যদি আপনার একটা পাসওয়ার্ড জেনে ফেলে সেক্ষেত্রে অন্য পাসওয়ার্ড গুলো সহজেই সে বের করে নিতে পারে।

Comments are closed.