পোশাকের যত্ন সম্পর্কিত কেয়ার কোড সমূহ সম্পর্কে জেনে নেই – (পর্ব-১)

পোশাকের যত্ন তথা পোশাকটি কিভাবে ব্যবহার করতে হবে, কিভাবে পরিষ্কার করতে হবে, কিভাবে শুকাতে হবে ইত্যাদি বিষয় গুলো সম্পর্কে আমাদের সকলেরই ধরণা থাকা দরকার। আপনি নিশ্চয় চাইবেন না আপনার পছন্দের পোশাকটি তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যাক। আমরা একটু সতর্ক হলেই আর সাধরণ কিছু বিষয় মেনে চললেই আমাদের সৌন্দর্য এবং ব্যাক্তিত্ব প্রকাশের অন্যতম উপকরণ আমাদের পোষকের যথোপযুক্ত পরিচর্যা নিশ্চিৎ করতে পারি।

পোশাকের যত্ন নেওয়ার বিজ্ঞান সম্মত পদ্ধতি লেখাটিতে আমরা পোশাকে লেবেল ব্যবহারের কারণ, কেয়ার লেবেল (Care label),কেয়ার কোড (Care code) এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত কিছু কেয়ার লেবেলিং কোড সম্পর্কে জেনেছি। আজ আমরা এই কোডগুলো সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানার চেষ্টা করব।

ওয়াশিং কোড সমূহ

ওয়াশিং হলো ক্লিনিং অপারেশন যা পানি, ডিটারজেন্ট, এ্যালকালি অথবা অরগানিক সলভেন্ট ব্যবহার করে ময়লা, দাগ ও বিভিন্ন অপদ্রব্য দূর করাকে বুঝায়। কাপড়ের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন ধরণের ওয়াশিং কোড রয়েছে।

ব্লিচিং কোড সমূহ

ব্লিচিং হচ্ছে একটি ক্যামিকেল প্রসেস,যার মাধ্যমে কাপড়ের প্রাকৃতিক রংকে ধ্বংস করা হয়। কাপড়ের ফাইবারের উপর ব্লিচিং প্রসেসটি নির্ভর করে। ব্লিচিং কোড নিম্নরূপ।

আয়রনিং কোড সমূহ

আয়রনিং কাপড়ের ভাজ দূর করার একটি বিশেষ পদ্ধতি যা সাধারণ আয়রণ অথবা স্টিম আয়রন ব্যবহার করে করা হয়। কাপড়ের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন ধরণের আয়রনিং কোড রয়েছে।

……………………………………………………..

আজ এখানেই শেষ করছি। আসুন আমরা আমাদের জ্ঞানের পরিধীকে বৃদ্ধি করার জন্য আমাদের জানা ছোট ছোট বিষয় গুলিকে সবার সাথে বিনিময় করি।সবার জন্য শুভকামনা রইল।

1 thought on “পোশাকের যত্ন সম্পর্কিত কেয়ার কোড সমূহ সম্পর্কে জেনে নেই – (পর্ব-১)”

  1. অসীম কুমার

    কেয়ার কোড সমূহের যে এত গুরুত্ব রয়েছে আগে জানতাম না। ধন্যবাদ হাফিজ ভাই। আপনার পরবর্তী লেখার অপেক্ষায় রইলাম।

Comments are closed.