8, 16, 32, 64 bit Computer

কম্পিউটার পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রসেসর রেজিস্টার কতগুলো বিট নিয়ে কাজ করতে পারবে, মেমরী এবং প্রসেসরে কতগুলো বিট একসাথে পাঠালে সুবিধা হয় এবং প্রতিটি তথ্যের আকার বা এড্রেসিং এর সাইজ কতবিট হবে এটার উপর নির্ভর করে কাজ শুরু হয়।

তার মানে

  • Data Bus Width
  • Addressing Width
  • Register Data Width

এই তিনটির উপর নির্ভর করে কতগুলো বিট একসাথে একটি ইনস্ট্রাকশন তৈরী করবে তা তৈরী করা হয়। সহজভাবে যদি বলি কতগুলো অক্ষর মিলে একটা শব্দ হবে এমন। যেহেতু আগের কম্পিউটারের মেমরী ও প্রসেসরের গতি কম ছিল তাই সর্বোচ্চ ৮ বিট এর এক একটা ইনস্ট্রাকশন নিয়ে কাজ করতে পারতো।

এটা মনে রাখতে হবে যে প্রসেসর যদি ৩২ বিটের হয় সেক্ষেত্রে র‌্যামও ৩২বিট করে তথ্য সংরক্ষণ করবে। তাই আমরা এখন অনেক বেশি র‌্যামএর কম্পিউটার দেখে থাকি।

৮ বিটের জায়গায় ৬৪বিট হওয়াতে লাভ কি?

বড় বড় ইনস্ট্রাকশনসেট নিয়ে কাজ করতে পারছি। ইনস্ট্রাকশন হলো কম্পিউটারকে কোন কমান্ড দেওয়া। ৮ বিটের ক্ষেত্রে বড় কোন কাজকে ছোটকাজে ভাগ করে পাঠাতো এবং তা আবার এক করে প্রকাশ করা হতো।

Picture Source

Leave a Comment

Your email address will not be published.