AI Camera এআই ক্যামেরা

আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্সের সাহায্যে ক্যামেরার সেটিংস এবং ধারণ করা ছবির রং এ পরিবর্তন আনা হয়। অটো মুড থাকলে কম আলোতে ক্যামেরার লাইট জ্বলে উঠতো। কিন্তু এআই থাকায় আইএসও এবং সাটার স্পিডও নিয়ন্ত্রণ করবে।

Picture Source: LG

এআই ক্যামেরা সিন ডিটেক্টও করবে অটোমেটিক। মানুষের মুখবয়বে সয়ংক্রিয় ফোকাস নিয়ে যাবে বা কোন টি গাছ পালা বা আকাশ তাও সে চিনে নিবে। দূরের গাছপালাকে এআই ক্যামেরা সাধারণত আরেকটু বেশি সবুজ করে দেয়। বা আকাশের মেঘের জন্যও আলাদা ইফেক্ট দেয়।

ইদানিং কালে এ আই স্মার্টফোনের ক্যামেরায ব্যবহৃত হচ্ছে।

সাফ কথা, ক্যামেরায় এআই সাধারণ মানুষকেও প্রোফেশনালের মতো ছবি তোলার সুযোগ করে দিচ্ছে। আবার ছবির ইফেক্ট দেওয়ার সফটওয়্যারের প্রয়োজনও কম পরছে।

তবে প্রোফেশনাল ফটোগ্রাফারের বেশিভাগই ছবির ক্ষেত্রে এআই পছন্দ করে না। অনেক সময় মূল ছবি অনেকটাই পাল্টে দেয়। বর্তমান স্মার্টফোন ক্যামেরায় সেলফির ছবি তোললে যেমন মেকাপ দেওয়ার মতোই চেহারার দাগ দুর করে সুন্দর করে দেয়, যা অনেকের অপছন্দ। আবার গাছপালার ছবিতে অতিরিক্ত সবুজতাও অনেকের অপছন্দ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.