প্রিয় পাঠক, একাউন্ট টি আপগ্রেড করে প্রিমিয়ায়াম সদস্য হওয়ার অনুরোধ রইলো। আপনার টাকা টিউটোরিয়ালবিডিকে বিজ্ঞাপনমুক্ত রাখতে সাহায্য করবে।

Blockchain ব্লকচেইন

ব্লকচেইন ধারাবিহকভাবে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত রেকর্ড তালিকা যেখানে প্রতিটি ডাটা হ্যাস এ তার আগের ডাটার লিংক থাকে। ডাটাটি কখন মডিফিকেশন করা হয়েছে এবং ট্রানজেকশন ডাটাও থাকে। আর এই তথ্য এনক্রিপ্ট করা থাকে।

এই পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণে চমৎকার সব সুবিধা পাওয়া যায় তা রেকর্ডটি উম্মুক্ত করে দিলেও চাইলেই কেউ এটা পরিবর্তন করতে পারবে না।

কোন ডিস্ট্রিবিউটেড ডাটায় একাধিক জায়গা থেকে আপডেট করার ক্ষেত্রে সুবিধা দেয় ব্লক চেইন।

ব্লকচেইন নির্দিষ্ট সময় পর সবগুলো সারভারের সাথে সিনক্রোনাইজেশন করে। ব্লকচেইন টেকনোলজীর সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো ডাটাবেজ ডিস্ট্রিবিউটেড প্লাটফর্মে রাখা যাচ্ছে এবং একই সময় ডাটা আপডেট করতে পারছে অনেকে। নির্দিষ্ট সারভারে হোস্ট না করার কারনে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে জিম্মি থাকতে হচ্ছে না।

ব্লক চেইন ব্যবহার করে বিটকয়েন একটি উম্মুক্ত মুদ্রা আদান-প্রদান ব্যবস্থা চালু করে দিয়েছে যার মাধ্যমে ডাবল স্পেন্ডিং সমস্যার সমাধান আছে। আবার কোন প্রতিষ্ঠানের কাছে জিম্মিও থাকতে হচ্ছে না।

1 thought on “Blockchain ব্লকচেইন”

  1. Pingback: Double-Spending ডাবল স্পেন্ডিং – কম্পিউটার ডিকশনারী

Leave a Comment

Your email address will not be published.